অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৯)

গত রাতে রাসেলের অবস্থা পর্যালোচনা-পূর্বক, কারবারির কথা শুনে আবুবকর পরিস্থিতির স্বার্থে একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাঁর নেয়া সেই সিদ্ধান্ত যে আমাদেরকে আমাদের নিয়তির পরম আশ্চর্য অংশে নিয়ে যাবে, ঘুণাক্ষরেও জানতাম না। আবুবকর আমাদের গন্তব্য বদলেছেন। গত রাতেই কারবারির থেকে পথ জেনে নিয়ে ফিরতি পথ ধরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। রাসেলের পায়ের এই অবস্থা নিয়ে আমাদের কাঙ্ক্ষিত গন্তব্যে…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (ভিডিও সাক্ষাৎকার)

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ধারাবাহিকটি চলছে অনেকদিন হলো। পাঠকদের আন্তরিক অভিনন্দন। এর ৯ম কিস্তির লেখা এখনও চলছে। সময় লাগছে, কারণ ব্যক্তিগত, পেশাগত, আর উইকিপিডিয়ার ব্যস্ততা। তবে খুব শিঘ্রই ইনশাল্লাহ আপনাদেরকে ৯ম কিস্তি উপহার দিতে পারবো বলে মনে হয়। সামনের কিস্তিগুলোতে থাকবে দুটো প্যানোরামা ছবি, আশা করি আপনাদের ভালো লাগবে। আপনাদের সাথে কথা ছিল, আমি রুমানা পাড়া বা…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৮)

আমরা প্রচন্ড উচ্চতায় দীর্ঘ পথ বেয়ে রুমানা পাড়ায় উঠে যখন প্রচন্ড ক্লান্ত, তখন আবুবকর ঘোষণা করলেন তাঁরা দুটো ঝরণা দেখতে যাবেন, কে কে যাবে? “আমরা” বলতে যে, কামরুলকেও যোগ করা হচ্ছে, এটা নিশ্চিত; কারণ আমরা তিনজন ছাড়া কামরুলকে নিয়েই এই পথে ট্রেক করার পরিকল্পনা ছিল আবুবকরের। আর আমি তখন নিজের চিত্তের উপর বাজি ধরে রাজি…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৭)

  হতাশায় যখন নেমে আসছি বেতকাঁটায় আটকে আটকে, তখন মোটেই ভালো লাগছিল না আমার। নিচে নেমে এসে ঠায় দাঁড়িয়ে থাকলাম আমরা। হতাশাটা আমি নাকিবের মাঝেও দেখতে পাচ্ছি। কিন্তু যতক্ষণ শ্বাস, ততক্ষণ আঁশ। দলনেতা আবুবকর একটা সূক্ষ্ম পথ যেন দেখতে পেলেন। সাথে সাথে নির্দেশ দিলেন দুই গাইডকে। নির্দেশনামতো, গাইডরা আলোচনা করতে গেল ঐ দুই পাহাড়ির সাথে,…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৬)

অন্ধকারের পথ ধরে আমরা চলছি কোনো এক অজানা পাড়ার সন্ধানে, কেউ জানিনা, আদৌ আছে কি নেই। পাড়া না পেলে অনেকটা পথ আবার ফিরে গিয়ে আস্তানা গাড়তে হবে নদীর বাঁকে। এমন সময়… আবুবকর চিৎকার করে বললেন,পাড়া, পাড়া। পাড়া আছে এখানে। সাথে সাথে মরুভূমির মধ্যে পানির কূপ পাবার মতো সবার মনে কী যে অনাবিল আনন্দ ছেয়ে গেল,…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৫)

দুই পাশে উলঙ্গ, ৯০ ডিগ্রি খাড়া পাহাড়, মাঝখানে কিছুটা গভীর পানি। এপাড়ে দাঁড়িয়ে আমরা সাতজন, যেতে হবে সামনে, যাবার জন্যেই এসেছি। এরকম পরিস্থিতিতে আগেও পড়েছি, কিন্তু এরকম খাড়া নাঙ্গা পাহাড়ের সামনে পড়িনি সত্যি বলছি। একেবারে রক ক্লাইম্বার হওয়া লাগবে, যার প্রস্তুতি আমাদের নেই। সুতরাং আর একটাই সহজ পথ খোলা আছে আমাদের সামনে— সাঁতার। আবুবকর তাই…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৪)

রাসেলের বাম পায়ের পাতায় ব্যথা করছে। সম্ভবত তার পা বাঁকা হয়ে কোথাও পড়েছে, তাই ব্যাথা করছে। কিন্তু সে হাঁটতে পারছে, তাই আমাদের পরিকল্পনা ভেস্তে যাবার সম্ভাবনা নেই। আমরা আমাদের প্ল্যানেই থাকলাম। গাইড দুজনকে অনুসরণ করে আমরা একটা ত্রিপুরা পাড়ায় পৌঁছলাম। পাড়াটার নাম বিকাশ বলেছিল, কিন্তু লিখে রাখিনি তখন। বগামুখ থেকে নেমে এসে আমরা এই পাড়ার…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৩)

আমাদের প্রকৃত যাত্রাপথ রুমা খালের মুখ (22° 1’57.00″N, 92°24’53.48″E) থেকে শুরু বলে শেষবারের মতো আমরা সম্মিলিতভাবে হাত তুলে প্রার্থণা করে নিলাম আল্লাহ’র কাছে। স্বাভাবিকভাবেই সে প্রার্থণায় বিকাশ আর আপেল সামিল হলো না। আমরা পানিতে পা রাখলাম, ভিজিয়ে ফেললাম পরনের অ্যাংকলেট, এবং এটাও বুঝলাম, আমাদেরকে এভাবে পথে অনেক অনেকবার ভিজতে হবে, শুকাতে হবে —এগুলো গোনায় ধরা যাবে…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২

~ দুটো নতুন ঝরণা আর নতুন পথের দিশা ~ ৮০ ডিগ্রী খাড়া ঢাল, সারিবদ্ধ আমরা পাঁচ জন, পায়ের নিচে গুড়ি গুড়ি নুড়ি পাথরের ছড়াছড়ি, নিজের শরীরের ওজন আর ব্যাগের ওজন মিলে মাধ্যাকর্ষণের টানে নিচের দিকে টানছে; পা হড়কালে ১০০ ফুট নিচের পাথুরে খাঁদে চির সমাধি, তাও শুধু একজনের নয়, নিচে, খাড়া পাহাড়ের সাথে ঝুজতে থাকা…

বিস্তারিত