ঈশ্বর ধারণা

বিজ্ঞানকে জিজ্ঞেস করলে বলবে, “ঈশ্বর বলে কেউ আছেন কি নেই, তা আমি জানি না।” – বিজ্ঞান “আছে”ও বলবে না, “নেই”ও বলবে না – অর্থাৎ বিজ্ঞান এক্ষেত্রে আস্তিকও না, নাস্তিকও না।

কিন্তু কেন টানা গ্রীষ্মের দাবদাহের পরে কোনো এক শুক্রবারেই (মসজিদে মসজিদে ক্ষমাপ্রার্থণামূলক বৃষ্টির জন্য দোয়ার পরেই) বৃষ্টি দিয়ে ঈশ্বর তাঁর নিজের অস্তিত্ব জানান দিবেন?

কিন্তু কেন কোন এক শরতে, দূর্গা দেবীর পৃথিবীতে আগমনের দিন ভূমিকম্প হওয়ার পরে মুন্নী সাহা বললেন, এবার দেবী “দোলায় চড়ে এসেছেন”, আর সেজন্যেই ভূমিকম্প হয়েছে। (মুন্নী সাহার ব্যক্তিগত বাজে পারফর্মেন্সের সাথে একে মেলানো ভুল হবে)

সামথিং ইয রিয়্যালী ফিশী!
বিজ্ঞানকে বোধহয় এখন নোয়েটিক্স-এর দিকে একটু গভীর নজর দিতে হবে…

মন্তব্য করুন