মুসলমানের বাচ্চা? বিসমিল্লা’ পারি তো?

মুসলমান বলে গর্ব হতে পারে। আরবি জানেন বলে গর্ব হতে পারে। কিন্তু সত্যি বলছি, “বিসমিল্লাহ…” জানেন – পারেন তো?

বিস্তারিত

বেহুদা লগ: বিজয় ফন্টে PDF বনাম Google OCR

আসকি ফন্টে লেখা পিডিএফ ইউনিকোডে বদলে নেয়ার জন্য গুগল ওসিআর ব্যবহার প্রচেষ্টার একটি লগ রেখেছি, যা অমীমাংসিত।

বিস্তারিত

কুসংস্কারের সংস্কার

কেউ বলবেন উনি কুসংস্কারে আচ্ছন্ন; কেউ বলবেন উনি কুসংস্কারে অন্ধ। কিন্তু সব কথাকে সবসময় আমল দিলে চলে না। এখন সময় এসেছে ব্যাপারগুলোকে খতিয়ে দেখার: অধ্যাপক আজহার হোসেন তাঁর লেখায় লিখেছেন: একটা কথা বড় আশ্চর্যজনক। উচ্চশিক্ষা এই সব সংস্কার বা কুসংস্কার দূর করতে পারে না। কারণ শিক্ষা হচ্ছে মানসিক বৃত্তির অগ্রগতি। এ সংস্কার কাল্পনিক ভয়-ভীতি থেকে…

বিস্তারিত

আরবি ক্যালিগ্রাফি – ধর্ম নয়, ধর্মধ্বংস

সংযোজন ২৬ আগস্ট ২০১৫: এই লেখাটি নিয়ে পাঠকের বিপুল অভিযোগ। একটা বিষয় একটু জেনে নেয়া দরকার: আমি ক্যালিগ্রাফি বিষয়ে কিছুই জানি না। একজন সাধারণ দর্শকের অবস্থান থেকে পুরো লেখাটা লেখা। মনে রাখতে হবে, একজন সাধারণ দর্শক ক্যালিগ্রাফির একটা ক্যালেন্ডার কিনে এনে ক্যালিগ্রাফি শেখার বই নিয়ে ক্যালিগ্রাফির জ্ঞান আহরণ করতে বসেন না, বরং প্রচণ্ড ধর্মানুরাগ থেকে…

বিস্তারিত

জ্যোতির্বিজ্ঞান বিষয়ক তথ্যচিত্রে আমার তৈরি বাংলা সাবটাইটেল

মহাকাশ নিয়ে আমার আগ্রহ সেই ছোটবেলা থেকেই, টেলিস্কোপ (বিস্তারিত) নামক বস্তুটি আমার বড় আরাধ্য, কিন্তু এখনও হয়নি কেনা। তবু মহাকাশ দেখা হয় ফেসবুকে, মহাকাশ দেখা হয় ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক চ্যানেল, হিস্ট্রি চ্যানেল আর নাসার হাত ধরে। লিখেছি বেশ কিছু নিবন্ধও। এরই ধারাবাহিকতায় একদিন দেখলাম ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক চ্যানেলের একটা ডকুমেন্টারি “Journey to the Edge of the Universe”…

বিস্তারিত

ভ্রমণ ২০১২ : শস্য-শ্যামলা উত্তর বাংলার টিউবওয়েলের মুখে (শেষ)

« আগের পর্ব আমরা বাংলাদেশের সর্বউত্তর সীমান্তে বঙ্গমাতার শীর চুমে ফিরেছি আবার তেঁতুলিয়ায়। ফিরে দেখি আমাদের ভ্যানওয়ালারা অপেক্ষা করছে। বেচারারা আয়ের আশা ছাড়তে পারছে না। কিন্তু ও ব্যাটা অটোওয়ালা লাগালো বাগড়া: ভাই তিনশ’ ট্যাকায় অয় না, আপনেরাইতো দেকলেন, কদ্দুর পত। আমরা আমাদের মিডলম্যান ভ্যানওয়ালার দিকে তাকালাম, কিন্তু শেষ পর্যন্ত বুঝলাম, একটু বাড়িয়ে দিয়েই শান্তি আনতে…

বিস্তারিত

ভিট্রুভিয়ান ম্যান এবং ঐশ্বরিক অনুপাত

রাত তখন অনেক গভীর, সবাই ঘুমিয়ে গেছে। একজন মানুষের কোনো ঘুম নেই। লম্বা একটা জোব্বা গায়ে, শশ্রুমন্ডিত লোকটি বেরিয়ে গেল ঘর থেকে। একটা লণ্ঠন একহাতে ধরে আরেক হাতে ধরেছে একটা গাঁইতি। গা ছমছমে পরিবেশে লোকটির যেনবা কোনোই ভয়-ডর নেই। সে গিয়ে ঢুকলো একটা কবরস্থানে। কোথাও ডেকে উঠলো একটা নিশাচর প্রাণী। গাঁইতি হাতে লোকটি, সদ্য কবর…

বিস্তারিত

অচেথন ১৬: নিরপেক্ষতা

দুটো পক্ষকে উল্লেখ করাই নিরপেক্ষতা নয়।
নিরপেক্ষতা হলো উক্ত দুটো পক্ষকে সঠিক কোনো তৃতীয় পক্ষ দ্বারা যাচাই করার গুণ।

– মঈনুল ইসলাম

বিস্তারিত

দ্রুত গতিতে হাঁটার কলকব্জা

আমি খুব দ্রুত হাঁটি। অনেকেই আমার হাঁটা দেখে আশ্চর্য হোন, কিন্তু আমি এতে আশ্চর্যের কিছু পাইনি। কারণ আমি মনে করতাম যে-কেউ চাইলেই দ্রুত হাঁটতে পারেন। কিন্তু আমার ভিতরের কলকব্জাটা বুঝতে পারলাম আমি যখন আমারই মতো আরেকজনকে দেখলাম। …আসুন দেখা যাক কিভাবে দ্রুত হাঁটা যায়: মাথাটা ঘুরছে, টালমাটাল হয়ে পড়ে গেলেন লোকটি এই কথাটি আমরা সবাই…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৮)

আমরা প্রচন্ড উচ্চতায় দীর্ঘ পথ বেয়ে রুমানা পাড়ায় উঠে যখন প্রচন্ড ক্লান্ত, তখন আবুবকর ঘোষণা করলেন তাঁরা দুটো ঝরণা দেখতে যাবেন, কে কে যাবে? “আমরা” বলতে যে, কামরুলকেও যোগ করা হচ্ছে, এটা নিশ্চিত; কারণ আমরা তিনজন ছাড়া কামরুলকে নিয়েই এই পথে ট্রেক করার পরিকল্পনা ছিল আবুবকরের। আর আমি তখন নিজের চিত্তের উপর বাজি ধরে রাজি…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৬)

অন্ধকারের পথ ধরে আমরা চলছি কোনো এক অজানা পাড়ার সন্ধানে, কেউ জানিনা, আদৌ আছে কি নেই। পাড়া না পেলে অনেকটা পথ আবার ফিরে গিয়ে আস্তানা গাড়তে হবে নদীর বাঁকে। এমন সময়… আবুবকর চিৎকার করে বললেন,পাড়া, পাড়া। পাড়া আছে এখানে। সাথে সাথে মরুভূমির মধ্যে পানির কূপ পাবার মতো সবার মনে কী যে অনাবিল আনন্দ ছেয়ে গেল,…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৫)

দুই পাশে উলঙ্গ, ৯০ ডিগ্রি খাড়া পাহাড়, মাঝখানে কিছুটা গভীর পানি। এপাড়ে দাঁড়িয়ে আমরা সাতজন, যেতে হবে সামনে, যাবার জন্যেই এসেছি। এরকম পরিস্থিতিতে আগেও পড়েছি, কিন্তু এরকম খাড়া নাঙ্গা পাহাড়ের সামনে পড়িনি সত্যি বলছি। একেবারে রক ক্লাইম্বার হওয়া লাগবে, যার প্রস্তুতি আমাদের নেই। সুতরাং আর একটাই সহজ পথ খোলা আছে আমাদের সামনে— সাঁতার। আবুবকর তাই…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৪)

রাসেলের বাম পায়ের পাতায় ব্যথা করছে। সম্ভবত তার পা বাঁকা হয়ে কোথাও পড়েছে, তাই ব্যাথা করছে। কিন্তু সে হাঁটতে পারছে, তাই আমাদের পরিকল্পনা ভেস্তে যাবার সম্ভাবনা নেই। আমরা আমাদের প্ল্যানেই থাকলাম। গাইড দুজনকে অনুসরণ করে আমরা একটা ত্রিপুরা পাড়ায় পৌঁছলাম। পাড়াটার নাম বিকাশ বলেছিল, কিন্তু লিখে রাখিনি তখন। বগামুখ থেকে নেমে এসে আমরা এই পাড়ার…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ৩)

আমাদের প্রকৃত যাত্রাপথ রুমা খালের মুখ (22° 1’57.00″N, 92°24’53.48″E) থেকে শুরু বলে শেষবারের মতো আমরা সম্মিলিতভাবে হাত তুলে প্রার্থণা করে নিলাম আল্লাহ’র কাছে। স্বাভাবিকভাবেই সে প্রার্থণায় বিকাশ আর আপেল সামিল হলো না। আমরা পানিতে পা রাখলাম, ভিজিয়ে ফেললাম পরনের অ্যাংকলেট, এবং এটাও বুঝলাম, আমাদেরকে এভাবে পথে অনেক অনেকবার ভিজতে হবে, শুকাতে হবে —এগুলো গোনায় ধরা যাবে…

বিস্তারিত

অফ-ট্র্যাক বান্দরবান ২০১২ (কিস্তি ২)

শেষ পর্যন্ত সমাধান বেরুলো:        আমরা তিনজন: উদ্দেশ্য বগালেক, কিওক্রাডাং (গাইড: সিয়াম)        ওরা দুজন: উদ্দেশ্য বগামুখ পাড়া, তারপর নিজস্ব পরিকল্পিত পথ (গাইড: একজন) রাতের খাবার শেষ হলে আবু বকর ঢাকায় ভ্রমণ বাংলাদেশ-এর বড় ভাইদের সাথে যোগাযোগ করে স্থানীয় গাইডকে খবর দিলেন। সে ব্যস্ত থাকায় পাঠালো পরিচিত গাইড সুমন দত্তকে। আবু বকর আর কামরুলের পথের…

বিস্তারিত